অন্তর্বাস কথন!

অন্তর্বাস কথন!

02 Oct, 2020 • How to use Undergarments

সকলের বডি শেপ এক হয় না। বডি শেপ অনুযায়ী অন্তবার্স বেছে নেওয়াটা সবচেয়ে জরুরি। বিশেষ করে অন্তর্বাসের ক্ষেত্রে তো এটা প্রথম এবং শেষ কথা। টিনেজ লাইফের শুরুর পথটা খুব মসৃণ হয় না সকলের জন্য। পিম্পল্স, পরীক্ষার পাশাপাশি জীবন জুড়ে থাকে হাজার একটা সমস্যা… তার মধ্যে কিছু সমস্যা শেয়ার করা যায় আর কিছু নয়। তবে অন্তর্বাস সংক্রান্ত সমস্যাগুলি তাই বেশিরভাগ সময়েই মনের সেফে লক থেকে যায়। সেই সেফ খুললে প্রথম যে সমস্যাটা ঝপ করে লাফিয়ে পড়ে তা হল বয়ঃসন্ধির শুরু থেকে কী ব্রা পরা উচিত আমাদের? উত্তরটা হল সাপোর্টিভ ব্রা। এই ব্রা-এ থাকে তুলনায় মোটা স্ট্র্যাপ্স এবং কাপ সাইজ় পুরো ব্রেস্টের ভরপুর কভারেজ দেয়। তাই শুধু শুরুতেই নয় সারা জীবনই এই ব্রা ওয়াড্রর্বে থাকা কিন্তু মাস্ট। রোজকার ব্যবহারের জন্য এই ব্রা-ই আইডিয়াল। ডান্স করো বা কঠিন কোনও ফিজ়িক্যাল অ্যাক্টিভিটি তোমাকে পুরোপুরি সাপোর্ট দিতে তৈরি এই বিশেষ অন্তর্বাস। ব্রা-এর ক্ষেত্রে সঠিক কাপ সাইজ় সঠিক না হলে প্রচণ্ড বিপদ! আর বিপদের তালিকায় প্রথম নামটি হল ‘স্যাগিং ব্রেস্ট’ বা ব্রেস্ট ঝুলে পড়ার সমস্যা। যখন দেখবে বসলে পরেও ব্রা-এর পজ়িশনে কোনও হের ফের হচ্ছে না তখন বুঝতে হবে ফিটটা ঠিক আছে। আর তা হলেই মহাবিপদ! যার থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় সঠিক কাপ সাইজ় বেছে নেওয়া।


কাপ-এ খাপ:

ফুটওয়্যার কিনতে গেলে আমরা সবসময় দেখে নিই তার ফিট এবং সাইজ় আমার পায়ের সঙ্গে খাপ খাচ্ছে কি না। কি তাই তো? যদি তা হয় তাহলেই সেটা আমাদের ওয়ার্ড্রবে জায়গা করে নিতে পারে। সেই একই নিয়ম বর্তায় অন্তবার্সের ক্ষেত্রেও। বিশেষ করে ব্রা-এর ক্ষেত্রে কাপ সাইজ়টা খুব জরুরি। নিজের কাপ সাইজ় বুঝে নিতে কোনও বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে পার। ব্রেস্টের কাপ সাইজ় মোটের উপর ভাগ হয় A, B, C, D মাপে। মোটামুটি ১৭.৮ থেকে ১৯.১ সেন্টিমিটারের ব্রেস্ট কাপ ‘A’ সাইজ়ের মধ্যে পড়ে। তেমনই ২০.৩ থেকে ২১.৬ সেন্টিমিটারকে ফেলা হয় ‘B’ কাপের আওতায়। ২২.৯ থেকে ২৪.১ সেন্টিমিটারকে বলা হয় কাপ সাইজ় ‘C’। ২৫.৪ থেকে ২৬.৭ সেন্টিমিটার হল ‘D’ কাপ। তবে এর উপরের কাপ সাইজ় প্রয়োজন হলে DD কাপ ট্রাই করা যেতে পারে। তবে একটা কথা মনে রাখতে হবে যে ব্র্যান্ড অনুযায়ী তোমার কাপ সাইজ়ে একটু হলেও হেরফের হতে পারে। মানে এক ব্র্যান্ডের ‘B’ সাইজ় তোমার ফিট হলে অন্য ব্র্যান্ডে শিফ্ট করলে যদি সেখানের ‘C’ সাইজ়টা তোমার বেশি ফিট করে তাতে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

ফিট হ্যায় তো হিট হ্যায়!

সঠিক কাপ সাইজ় বাছার পালা সাঙ্গ হলে নজর দিতে হবে আরও একটা জরুরি দিকে। ব্রা-র ফিট ঠিক না থাকলে কিন্তু খুব বেকায়দায় পরতে হবে। তবে কয়েকটা বিষয় মিলিয়ে নিলে আর কোনও চাপ নেই। কী কী মেলাবে? রইল তারই চেকলিস্ট…

আন্ডারব্যান্ডটা পিঠের উপর স্বচ্ছন্দ থাকে যেন। আর হুকের জায়গাটা থাকতে হবে পিঠের মধ্যিখানে। এরপর হাত তুলে দেখতে হবে ব্রা-এর পজ়িশনে কোনও হেরফের হল কি না। যদি হয় তাহলে ফিট ঠিক নেই। ব্যান্ডটি তোমার প্রয়োজনের তুলনায় বড়।

যদি অন্তর্বাসটিতে আন্ডারওয়্যারের ব্যবহার থাকে তাহলে দেখতে হবে সেটি ত্বকের উপর স্বচ্ছন্দে বসছে কি না। যদি কোনও রকমের খোঁচা লাগে তাহলে ব্যাপারটা খুব বিপজ্জনক।

স্ট্র্যাপস ইনারওয়্যারের ক্ষেত্রে খুব জরুরি একটা অংশ। প্রায় ২০ শতাংশ সাপোর্ট দেয় এটা ব্রেস্টকে। তাই বিশেষজ্ঞরা বেশিরভাগ সময় চওড়া স্ট্র্যাপ্স পরার পরামর্শ দেন। পাশাপাশি ইলাস্টিকের ধরন যেন ভাল হয় এবং তা যেন ত্বকের উপর কোনও ছাপ না ফেলে।

ব্রা-এ মাঝের সিমটা যেন বুকের ঠিক মাঝখানে বসে থাকে। আর স্ট্র্যাপসগুলো সমান্তরাল থাকতে হবে। তা যদি না হয় তাহলে। তাহলে সাইজ়টা তোমার দন্য ছোট।

সবশেষে দেখে নিতে হবে ব্রা-এর কাপের উপর দিয়ে কভারেজের উপর দিয়ে ব্রেস্টটা স্পিল করছে কি না? যদি তা না হয় তাহলে ফিটটা তোমার জন্য একদম পারফেক্ট!